জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আবার ব্যর্থ যুক্তরাষ্ট্র

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের (ইউএনএসসি) প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের জন্য যুক্তরাষ্ট্র যে স্ন্যাপব্যাক ম্যাকানিজম চালুর আবেদন করেছে তা নিয়ে সামনের দিকে অগ্রসর হওয়ার কোনও সুযোগ নেই।

মঙ্গলবার মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে এক বৈঠক করেন নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি দিয়ান ত্রিয়ানসিয়াহ দিজানি। জাতিসংঘে নিযুক্ত প্রতিনিধির দেশ ইন্দোনেশিয়া এবার পরিষদের সভাপতিত্ব করছে। রাশিয়া ও চীনের করা এক প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে পরিষদের অবস্থানের কথা জানান দিজানি, তবে তার এই বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন স্থায়ী প্রতিনিধি।

আবেদন প্রত্যাখ্যান হওয়ার পর মার্কিন প্রতিনিধি কেলি ক্র্যাফটের অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্রের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করা দেশগুলো সন্ত্রাসীদের সমর্থন করছে। তিনি বলেছেন, ‘একটা ব্যাপার পরিষ্কার করতে চাই, পক্ষে কেউ না থাকলেও এই ব্যাপারে অটল থাকতে ট্রাম্প প্রশাসনের কোনও ভয় নেই। আমার একমাত্র অনুশোচনা এই পরিষদের অন্য সদস্যরা তাদের পথ হারিয়েছে এবং এখন সন্ত্রাসের পক্ষে দাঁড়াচ্ছে।’

ইন্দোনেশিয়ার এই বক্তব্যের পর ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালে যুক্তরাষ্ট্রের সব প্রচেষ্টার অবসান হবে কিনা তা স্পষ্ট নয়। জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভ্যাসিলি নেবেনজিয়া আশা প্রকাশ করেছেন যে ইরানের বিরুদ্ধে স্ন্যাপব্যাক ম্যাকানিজম চালুর চেষ্টা থেকে এখন সরে যাবে। তার সহকারী দিমিত্রি পোলিয়ানস্কি টুইটারে ইন্দোনেশিয়ার এই বক্তব্যের মূল কথা তুলে ধরেছেন কয়েকটি শব্দে, ‘এর মানে হলো, আর কোনও স্ন্যাপব্যাক নেই।’

গত সপ্তাহে মার্কিন সেক্রেটারি অব স্টেট মাইক পম্পেও বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের দাবি জানিয়ে তারা জাতিসংঘের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি লিখেছে। দুদিন যেতেই যুক্তরাষ্ট্রের এই আবেদনের তীব্র বিরোধিতা করে চিঠি লেখে নিরাপত্তা পরিষদের ১৩ দেশ, যা থেকে আমেরিকা ছাড়া বিরত ছিল কেবল ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *